জানুন পিসার হেলানো মন্দির বিষয়ে

পৃথিবীর অন্যতম সবচেয়ে সুন্দর একটি দেশ হচ্ছে ইতালি। ইতালি শহরে রয়েছে অনেক নিদর্শন। আপনি নিশ্চয়ই ইতালির পিসা শহরের নাম শুনেছেন। আপনি হয়তো এই পিসা শহরের নাম নাই শুনতে পারেন কিন্তু পিসার হেলানো মন্দিরের নাম নিশ্চয়ই শুনেছেন। এটি সবসময় হেলে থাকে আর এই হেলে থাকার জন্য মূলত এটি বিখ্যাত। বলে রাখা ভালো ১৪ শতকে এই টাওয়ারটি সম্পূর্ণ হয়ে যায়। তবে সম্পূর্ণ হবার পর এটি এখন পর্যন্ত ফেলে রয়েছে। কিন্তু সবচেয়ে বড় রহস্য হচ্ছে এখন পর্যন্ত এটা পড়ে যায়নি। কিন্তু সেই আগের মতোই হেলে রয়েছে। কিন্তু এর মধ্যে কি এমন রহস্য রয়েছে যে শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে এটি হেলে থাকলেও পড়ে যায় নি? চলুন আজ এই রহস্য ভেদ করার চেষ্টা করবো।

* পিসার হেলানো টাওয়ারের নামকরণ এবং উচ্চতা?

মূলত এটির নামকরণের আলাদা ইতিহাস নেই। ইতালির পিসা শহরে অবস্থিত তাই এর নামের সাথে পিসা টাওয়ার ছিলো। আর পরবর্তী হেলে পড়ার জন্য এর নাম হয় পিসার হেলানো টাওয়ার। নিচ থেকে উপর পর্যন্ত এর উচ্চতা ৫৬ মিটার। ওজন: ১৪,৫০০ টন। সিঁড়ি রয়েছে: ২৯৪টি। ৩.৯৯ ডিগ্রি কোণে ঘুরে আছে।

* এর হেলে থাকার আসল রহস্য:

বেশ কিছুদিন আগে কিছু গবেষক দল যারা কিনা এই ১৯০ ফিট উঁচু মিনারের রহস্য ভেদ করতে এগিয়ে এসেছে। তারা এই মিনারের জমি ও গঠন খুটিয়ে পরীক্ষা করে। এরপর তারা জানাতে সক্ষম হয় যে ঠিক এমন কি রহস্য রয়েছে যার ফলে এই টাওয়ারটি এখনো অক্ষত রয়েছে। এই বিষয়গুলো ব্রিস্টল বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণা জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।

সেই জার্নালে তারা জানিয়েছে, এই মিনারের গঠনকে মূলত আকর্ষণীয় করে তুলেছে তিণটি জিনিস। তিণটি জিনিস হচ্ছে মিনারের গঠন, এর কাঠিন্য ও এটির জমির চরিত্র। এই তিণটি জিনিস এই অসম্ভব জিনিসকে সম্ভব করে তুলেছে। এছাড়াও এই মিনারের মাটি খুবই নরম। এটি বিভিন্ন সময়ে ভূমিকম্পে রক্ষা করতে সহযোগিতা করেছে। এছাড়াও এই মিনারের গঠন ও কাঠিন্য এটি বড় ভূমিকা পালন করেছে। আর মাটির গঠন ও কাঠিন্যতার জন্য মিনারটি হেলে রয়েছে আবার এই গঠন ও কাঠিন্যতার জন্য এটি পড়ে যাচ্ছে না। মূলত এই তথ্যগুলো নিশ্চিত করেছে সেই গবেষক দলের সদস্য জর্জ মাইলোনাকিস।

About Md Sanuar Mahmud

Nothing special

Check Also

EngineersThought Thumbnail

স্পেসস্টেশনে কি আছে

স্পেসস্টেশন বা মহাকাশ স্পেসস্টেশন এর নাম শুনেননি এমন মানুষ খুব কম রয়েছে। এর চেয়েও বড় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *